শুক্রবার , জুন ১৪ ২০২৪

মেম্বার যখন মামলার দালাল!

মানজুরুল আলম রানা

পারিবারিক ঝগড়া, জমি সক্রান্ত সমস্যা, স্বামী-স্ত্রীর মাঝে বিরোধ, মেডিকেল সার্টিফিকেট, মামলার স্বাক্ষী সহ সব সমস্যার সমাধান করেন। ফরিদগঞ্জ উপজেলা ১২নং চরদুঃখিয়া বিশ কাঠালী গ্রামের ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার মজিবুর রহমান শেকু।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানান, শেকুর আছে দালাল চক্র। পান থেকে চুন খসলেই দালাল চক্রটি দুটি ভাগে ভাগ হয়ে সমস্যা সমাধানের জন্য মেম্বর শেকুর কাছে ধর্না দিতে উভয় পক্ষ কে বলেন। যে শেকুর কাছে ধর্না দিবে তার পক্ষ নিয়ে অপর পক্ষকে সালিশির কথা বলে ডাকা হয়। শেকুর ডাকে সাড়াঁ না দিলে প্রথম পক্ষ কে দিয়ে করা হয় মামলা।

প্রয়োজন হলে দালাল চক্রের সদস্যদের করা হয় মামলার স্বাক্ষী। চক্রের যে তালিকা অনুসন্ধানী প্রতিবেদকের হাতে আছে তাদের নাম ঠিকানা যাচাই করে প্রকাশ করা হবে। টাকা দিলেই মিলে শেকুর কাছ থেকে ডাক্তার সার্টিফিকেট। আরো জানান, সালিশি বৈঠকের নামে উভয় পক্ষ থেকে নেয় খালি কার্টিজ পেপারে স্বাক্ষর। যা শেকুর মোটা অংকের টাকা কামানোর কৌশল।

এছাড়াও ভিবিন্ন মামলার বাদীর সাথে মিলে দালালী করেন থানা ও চাঁদপুর আদালতে।

যা শেকুর নিত্য দিনের ব্যাপার। ৫নং ওয়ার্ড এই মেম্বর মামলার দালাল হিসেবে সকলের কাছে পরিচিত। শেকুর কথিত ভাগনী আয়েশাআক্তার হেপি বাদী হয়ে বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালত চাঁদপুর ভয়ভীতি ও হুমকির মিথ্যা মামলা দায়ের করে। মামলানং- ৬২৬ স্বাক্ষী করা হয় শেকুর ঘনিষ্ঠ জন দেলোয়ার হোসেন মিজিকে।

ঘটনা সম্পর্কে বাদীর স্বাক্ষী দেলোয়ার হোসেন মিজি বলেন, মামলার বিষয় আমি কিছুই জানিনা। ২৩২নং মামলার ছাড়া আর কোন মামলায় স্বাক্ষী দেই নাই। মেম্বর শেকু বাদী আয়েশা আক্তার হেপিকে ছিনেন কিনা প্রশ্ন করলে বলেন। আমি শেকুকে ছিনি কিন্তু মামলার বাদী হেপিকে ছিনিনা।

অত্র মামলার বিষয়ে কিছুই জানিনা। আমি বিজ্ঞ আদালতে গিয়ে বলতে পারব। মেম্বর শেকুর সাথে টাকার বিনিময় ডাক্তারি সার্টিফিকেট এনে দেয়ার বিষয় জানতে চাইলে বলেন, আমি টাকার বিনিময় কোন ডাক্তারি সার্টিফিকেট এনে দেই না। এসব মিথ্যা কথা। অনুসন্ধানে জানা যায়, ভূক্তভোগী হুমায়ুন কবিরের স্বাক্ষীদের হুমকি ও খালি কার্টিজ পেপার উদ্ধার প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক ও পুুলিশ সুপার চাঁদপুর বরাবর একটি অভিযোগ দাখিল করেন।

মামলার বিষয় ফরিদগঞ্জ থানার সাথে যোগাযোগ করা হলে ওসি বলেন, মামলার কাগজ আসলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়াহবে।