শনিবার , জুলাই ১৩ ২০২৪

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

হাজীগঞ্জ পূজামন্ডপে হামলার ঘটনায় জামাত নেতার স্বীকারোক্তি শিরোনামে গতকাল শুক্রবার, আজ শনিবার চাঁদপুরের স্থানীয় কয়েকটি দৈনিক পত্রিকা, ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া ও অনলাইন মিডিয়ায় জামায়াতে ইসলামী সম্পর্কে যে মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী হাজীগঞ্জ উপজেলা আমীর বিএম কলিমুল্লাহ।

গত ২৩ অক্টোবর এক বিবৃতিতে জামায়াতের এই নেতা বলেন, পত্র-পত্রিকায়, ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে যেসব বক্তব্য প্রকাশ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ কাল্পনিক, মনগড়া ও বাস্তবতা বিবর্জিত। হাজীগঞ্জের মামলায় গ্রেপ্তারকৃত এজহার বহির্ভূত আসামি মোঃ কামাল উদ্দিন আব্বাসী জামায়াতের কোন পর্যায়ের নেতা বা কর্মী নহে।

গ্রেপ্তারকৃত কামাল উদ্দিন কখনো ছাত্রশিবিরের হাজিগঞ্জ উপজেলার সভাপতি ছিলেন না। বিএম কলিমুল্লাহ বিবৃতিতে আরো বলেন, মোঃ কামাল উদ্দিন আব্বাসীর সাথে জামায়াতে ইসলামী অথবা ছাত্রশিবিরের দূরতম সম্পর্ক কখনো ছিল না, এখনো নাই। তিনি আরো বলেন, জামায়াতে ইসলামীর কর্মীও নয় এমন একজন ব্যক্তিকে জামায়াতের নেতা বানানোর নাটকই প্রমান করে এধরনের রিপোর্ট গভীর ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের অংশ।

বাংলাদেশের মুক্তিকামী গণমানুষের প্রিয় ঠিকানা বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর মান সম্মান ক্ষূন্য করা এবং জনগণের সামনে সংগঠনকে হেয় প্রতিপন্ন করার অসৎ উদ্দেশ্যে এই ধরনের মনগড়া কাল্পনিক প্রতিবেদন বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকায় ও অনলাইনে প্রকাশ করা হয়েছে বলে তিনি মনে করেন।

গত ১৩ অক্টোবর হাজীগেঞ্জ বা চাঁদপুরের কোথায়ও জামায়াতে ইসলামী এবং ছাত্র শিবিরের কোন কর্মসূচি ছিল না। এই ধরনের মিথ্যা, বানোয়াটি ও বিভ্রান্তিকর রিপোর্ট প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকার জন্য তিনি মিডিয়ার সকল সাংবাদিকদের প্রতি বিশেষভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন। একই সাথে তিনি হাজীগঞ্জে পুজামন্ডপে হামলা ও পুলিশের গুলিতে ৫ জন নিহতের ঘটনার প্রতিবাদ জানান এবং দোষীদের বিচার দাবি করেন। -প্রেস বিজ্ঞপ্তি।