মঙ্গলবার , মে ২১ ২০২৪
All-focus

ইসলাম বিরোধী “কমান্ডো” মুভি নিষিদ্ধ করে ডিরেক্টর ও প্রডিউসারকে গ্রেফতারের দাবীতে চাঁদপুরে মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদান

ইসলাম ও মুসলমানদের অবমাননাকর “কমান্ডো” মুভি নিষিদ্ধ করে এর ডিরেক্টর ও প্রডিউসারকে ধর্ম অবমাননার দায়ে গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবীতে গতকাল ৬ জানুয়ারী বুধবার চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের সড়কে মানববন্ধন কর্মসুচি ও জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করা হয়েছে।

আগামী ১৬, ১৭, ১৮ জানুয়ারি মুভিটির শুটিং বন্ধের দাবীতে গতকাল সকালে চাঁদপুর জেলা কওমী যুব সংগঠনের উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন ও নবগত জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিস এর নিকট স্মারকলিপি প্রদান করছেন কওমী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এতে সভাপতিত্ব করেন চাঁদপুর জেলা কওমী যুব সংগঠনের সভাপতি মাওলানা মোঃ আবুল হাসানাত। ও অর্থ সম্পাদক মুফতি নূরে আলমের পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা কওমী সংগঠনের সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মুফতি সিরাজুল ইসলাম।

তিনি বক্তব্যে বলেন, কামান্ডো ছবির গল্পে ইসলামকে খাট করা হয়েছে। একই সাথে সুন্নতী পোশাককে অবমাননা করা হয়। ইসলাম এবং ইসলামের চেতনা প্রতিক কালিমা খচিত পতাকা লাঞ্চিত করা হয়েছে। কালেমার পতাকা সন্ত্রাসী প্রতিক হিসেবে দেখানো হয়েছে। ভারতীয় নায়ক দেব তার অভিনয়ের মাধ্যমে মুসলমানদের জাঙ্গি হিসেবে সেখানে সাব্যস্ত করে বুঝানো হয়েছে। বাংলাদেশের ৯২% মুসলমান এই ধরণের সিনেমা মেনে নিতে পারে না। এই ধরণের ছবির শুটিং চাঁদপুরের তৌহিদি জনতা কোনো ভাবে হতে দিবে না এবং রুখে দাঁড়াবে। পাশাপাশি শুটিং স্থান ঘেরাও করা হবে।

এই ধরণের ছবির শুটিং চাঁদপুরের তৌহিদি জনতা কোনো ভাবে হতে দিবে না

সাধারণ সম্পাদক মাওলানা লিয়াকত হোসেন, সহ সভাপতি মাওলানা মুফতি শাহাদাৎ হোসেন কাশেমী, মাওলানা নুরুল আমিন জিহাদী, সহ-সভাপতি মাওলানা হাবিবুর রহমান, সহ সম্পাদক মুফতি মাহবুবুর রহমান, মুফতি তারেক হাসান, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা ইদ্রিস, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মুফতি আশেক এলাহী প্রমূখ।

বক্তারা আরো বলেন, কালেমা খচিত পতাকা প্রদর্শন করে জঙ্গিবাদ দমনের নামে ইসলামকে অবমাননা করা হয়েছে। আগামী ১৬, ১৭, ১৮ জানুয়ারি চাঁদপুরে শুটিং করা হবে। চাঁদপুরের পবিত্র মাটিতে এ শুটিং কোনভাবেই ধর্মপ্রাণ মুসলমান মেনে নেবে না। শাপলা মিডিয়ার সত্ত¡াধিকারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সেলিম খান হয়তো না বুঝে ছবিতে এ ধরনের বিষয় দেখিয়েছেন। তাই উনার প্রতি আহবান আপনি ইসলামকে অবমাননাকারী ছবির শুটিং অবিলম্বে বন্ধ করুন।

ইসলাম কোন ভাবেই জঙ্গীবাদকে প্রশ্রয় ও লালন করে না। কিন্তু অনেকেই সিনেমার মাধ্যমে জঙ্গীবাদকে ইসলামের সাথে জড়িয়ে দিচ্ছে, তা কোন ভাবেই ধর্মপ্রাণ মুসলাম তথা তৌহিদি জনতা মেনে নেবে না।

বক্তব্যের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত করেন হাফেজ তারেক খান ও ইসলামী সংগীত পরিবেশন করেন হা আবু সাঈদ। মানবন্ধন শেষে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ কমারন্ড ছবির শুটিং বন্ধে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক বরাবর একটি স্মারকলিপি পেশ করেন।

ক্যাপশণ: ইসলাম ও মুসলমানদের অবমাননাকর “কমান্ডো” মুভি নিষিদ্ধ করে এর ডিরেক্টর ও প্রডিউসারকে ধর্ম অবমাননার দায়ে গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবীতে চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের সড়কে মানববন্ধন কর্মসুচি ও জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করছেন চাঁদপুর জেলা কওমী যুব সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।