মঙ্গলবার , মে ২১ ২০২৪
নারী র‌্যাপার

আন্তর্জাতিক নারী দিবস আগামীকাল

দিগন্ত রিপোর্ট
আগামীকাল ৮ মার্চ মঙ্গলবার, আন্তর্জাতিক নারী দিবস। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও দিনটি পালিত হয় যথাযথ মর্যাদায়। পৃথিবীর কোনও অংশে এটি উদযাপনের দিন, কোথাও বা প্রতিবাদের। নারী দিবসের এবারের প্রতিপাদ্য- ‘সবাই মিলে ভাবো, নতুন কিছু করো, নারী-পুরুষ সমতার নতুন বিশ্ব গড়ো’।

দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন সামাজিক রাজনৈতিক সংগঠন নানা কর্মসূচি পালন করবে। দিনটির পেছনে রয়েছে নারী শ্রমিকের অধিকার আদায়ের লড়াইয়ের ইতিহাস। অনেক দেশে তাই আজও দিনটি পরিচিত আন্তর্জাতিক নারী শ্রমিক দিবস হিসেবেই।

১৮৫৭ সালে মজুরি বৈষম্য, কর্মঘণ্টা নির্দিষ্ট করা, কাজের অমানবিক এবং অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের রাস্তায় নেমেছিলেন সুতো কারখানার নারী শ্রমিকেরা। রাষ্ট্রবিরোধী প্রতিবাদে অধিকাংশ সময়েই যেটা দেখা যায়, এক্ষেত্রেও তাই-ই হলো। সেই মিছিলে চলল সরকারি লেঠেল বাহিনীর দমনপীড়ন।

১৯০৮ সালে নিউইয়র্কে সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট নারী সংগঠনের পক্ষ থেকে আয়োজিত নারী সমাবেশে জার্মান সমাজতান্ত্রিক নেত্রী ক্লারা জেটকিনের নেতৃত্বে সর্বপ্রথম আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন হয়। ক্লারা ছিলেন জার্মান রাজনীতিবিদ, জার্মান কমিউনিস্ট পার্টির স্থপতিদের একজন।

এর পর ১৯১০-এ ডেনমার্কের কোপেনহ্যাগেনে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন। ১৭টি দেশ থেকে ১০০ জন নারী প্রতিনিধি যোগ দেন দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলনে। এখানেই প্রথম ৮ মার্চকে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালন করার প্রস্তাব দেন ক্লারা জেটকিন।

সিদ্ধান্ত হয়, ১৯১১ থেকে নারীদের সম অধিকার দিবস হিসেবে দিনটি পালিত হবে। ১৯১৪ সাল থেকে বেশ কয়েকটি দেশে ৮ মার্চ পালিত হতে লাগল নিয়মিত। ১৯৭৫ সালে রাষ্ট্রপুঞ্জ মার্চ মাসের এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। পৃথিবীর অনেক দেশে আন্তর্জাতিক নারী দিবস আনুষ্ঠানিক ভাবে সরকারি ছুটির দিন হিসেবে পালিত হয়।

৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। এ উপলক্ষে মার্চ মাসকে ‘নারী গ্রাহক বিশেষ সেবা মাস’ হিসেবে ঘোষণা করেছে রাষ্ট্রয়ত্ত জনতা ব্যাংক। এ মাসে ব্যাংকের প্রতিটি শাখায় নারী গ্রাহকদের সর্বোত্তম সেবা নিশ্চিতে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ও দ্রæততম সময়ের মধ্যে সেবা দিতে খোলা হয়েছে আলাদা কাউন্টার।

দিবসটি উপলক্ষে নেয়া কার্যক্রম যথাযথ মর্যাদায় পরিপালন নিশ্চিতে একটি অফিস আদেশও জারি করা হয়েছে, যা ব্যাংকটির সব শাখায় পাঠানো হয়েছে। শুধু নারী গ্রাহকদের নয়, এ ব্যাংকে কর্মরত নারী কর্মীদের বিষয়টি মাথায় রেখে প্রতিটি শাখায় সংরক্ষিত ওয়াশরুম, টয়লেট ও বিশ্রামাগারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।